1. info@www.dailybdcrimetimes.com : দৈনিক বিডি ক্রাইম টাইমস.কম :
বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪, ০৫:০৭ অপরাহ্ন
Title :
গাইবান্ধা বাদিয়াখালিতে ভাড়াটিয়ে সন্ত্রাসীদের দিয়ে জোর করে জমি দখল বিয়ের মেহেদী রং মুছার আগে বজ্রপাতে সৌদি প্রবাসী সোহাগ মিয়ার মৃত্যু বাউফলে দোষী প্রমানিত না করেই বেধড়ক মারধর, গুরুত্বর আহত ব্যবসায়ী পাইকগাছা উপজেলা পরিষদের বিজয়, আনন্দ মোহন বিশ্বাস চেয়ারম্যান ,ভাইস-চেয়ারম্যান বাবলু,মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান অনিতা কোটা পুনর্বহালের বিরুদ্ধে ফের উত্তাল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় পাইকগাছায় রেমালে ক্ষতিগ্রস্ত ২ শত পরিবারের মাঝে ছওয়াব বাংলাদেশ এর খাদ্য সামগ্রী বিতরণ সাদুল্লাপুরে সিএনজিসহ ফেনসিডিল জব্দ, গ্রেফতার ২ শ্রীপুরে স্বামীর তালাবদ্ধ ফার্মেসিতে স্ত্রীর গলাকাটা লাশ গাইবান্ধা গোবিন্দগঞ্জে ভুয়া ম্যাজিস্ট্রেট আটক ব্রাহ্মণবাড়ীয়া সদর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে বিপুল ভোটে আনারস প্রার্থী শাহাদাৎ হোসেন শোভন এর বিজয়

ট্রাক ড্রাইভার হত্যাকান্ডে বাউফলে ব্যবসায়ীর গোডাউন থেকে ছিনতাইকৃত রড উদ্ধার, আটক ৪

Reporter Name
  • Update Time : বুধবার, ২৪ এপ্রিল, ২০২৪
  • ১৮ Time View

পর্ব ১

এম জাফরান হারুন, নিজস্ব প্রতিবেদক, পটুয়াখালী::

ট্রাক ড্রাইভার মোঃ আল-আমিন (৩৩) কে হত্যা করে ট্রাক ও ট্রাকে থাকা বিপুল পরিমাণ রড ছিনতাইয়ের ঘটনায় ছিনতাইকৃত ৯ মেট্রিকটন রড উদ্ধার করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার (২৩শে এপ্রিল) রাতে বাউফল থানা পুলিশের সহযোগিতায় দশমিনা থানা পুলিশ ও দশমিনা নৌ পুলিশ অভিযান চালিয়ে বাউফলের দাসপাড়া বাসষ্ট্যান্ড সংলগ্ন একতা এন্টারপ্রাইজের গোডাউন থেকে রডগুলো উদ্ধার পূর্বক একতা এন্টারপ্রাইজের তিন ম্যানেজারকে আটক করা হয়েছে।

একতা এন্টারপ্রাইজের স্বত্তাধিকারি মাসুদ রানার ম্যানেজার নান্নু সহ তিন ম্যানেজার রডগুলো আত্মগোপনে থাকা ট্রাকের হেলপার হাসানের কাছ থেকে ক্রয় করেছিলেন বলে জানা যায়। ছিনতাইকৃত রড ক্রয়-বিক্রয়ের মধ্যস্থতা করেন দশমিনার স্কুল শিক্ষক মোঃ মজিবর রহমান নামের এক ঠিকাদার। পরপরই ওই রাতেই পুলিশের টিম তিন ম্যানেজারকে আটক পূর্বক সাথে নিয়ে গিয়ে ওই স্কুল শিক্ষক ও ঠিকাদার মোঃ মজিবুর রহমান কে তার বাসা থেকে আটক করা হয়।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, গত ১৭ই এপ্রিল চট্টগ্রামের আবুল খায়ের ইন্ডাট্রিজ এর কারাখানা থেকে ঢাকা মেট্রো-ট-১৬-৫১৩৮ নম্বরের ট্রাকটি ১৩ মেট্রিকটন রড নিয়ে বাউফলের কালিশুরী বাজারের উদ্দেশ্যে রওয়ানা দেয়। পরের দিন ১৮ই এপ্রিল কালিশুরীর খান এন্টারপ্রাইজে রডগুলো আনলোড করার কথা। কিন্তু ১৮ই এপ্রিল ট্রাকের ড্রাইভার আল আমিনকে ফোন করে বন্ধ পান তার মামা মোঃ সবুজ।

এদিকে ২০ই এপ্রিল দশমিনার নদীতে হাত-পা বাঁধা অবস্থায় অজ্ঞাত পরিচয়ের এক ব্যক্তির লাশ উদ্ধার করে নৌ পুলিশ। পরে মামা সবুজ খোঁজ খবর নিয়ে জানতে পারেন ওই লাশ তার ভাগ্নে আল আমিনের। ময়নাতদন্ত শেষে আল আমিনের লাশ পরের দিন চাঁদপুরে নিয়ে দাফন করা হয়। এব্যাপারে দশমিনা থানায় অজ্ঞাতনামা আসামীদের বিরুদ্ধে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন আল-আমিনের মামা সবুজ। এরপরই ঘটনার রহস্য উদঘাটনে নামে পুলিশের একাধিক টিম।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা দশমিনা নৌ পুলিশের এসআই আল মামুন বলেন, ট্রাকের ড্রাইভার আল আমিনকে খুন করে ঘাতকরা রডগুলো কালাইয়া বাজারের একতা এন্টারপ্রাইজের মালিক মাসুদ রানার কাছে নগদ টাকায় বিক্রি করে দেয়। মাসুদ রানা ওই রডগুলো গুদামে রেখে দেন। তদন্তের একপর্যায়ে নিশ্চিত হয়েই রডগুলো মঙ্গলবার রাতে ওই গুদাম থেকে জব্দ করা হয়। আর আল আমিন হত্যাকান্ডের মুল নায়ক আত্মগোপনে থাকা ট্রাকের হেলপার হাসানকে আটকের জন্য অভিযান চলছে। এদিকে রড পরিবহনের কাজে নিয়োজিত ট্রাকটি পুলিশ বাকেরগঞ্জের বোয়ালিয়া বাহাদুরপুর এলাকা থেকে উদ্ধার করা হয়েছে।

আল আমিনের মামা সবুজ বলেন, ছোটবেলায় আল আমিনের বাবা মা মারা যান। এরপর থেকে তার কাছেই বড় হন আল আমিন। মামা সবুজের বাড়ি চাঁদপুর জেলার মতলব থানার লামছড়ি গ্রামে। বর্তমানে তিনি থাকেন নারায়নগঞ্জের ফতুল্লা বউবাজার এলাকায়। সবুজ তার ভাগ্নেকে ড্রাইভিং প্রশিক্ষণ দিয়ে একটি ট্রাক কিনে দেন। মামার ট্রাক চালিয়ে আল আমিন আয়রোজগার করতেন। ১৭ই এপ্রিল চট্টগ্রামের ট্রান্সপোর্ট ম্যানেজার রনজিৎ মজুমদারের সঙ্গে চুক্তি করে রডগুলো বাউফলের কালিশুরী বন্দরে পৌঁছে দেয়ার জন্য আবুল খায়ের ইন্ডাট্রিজ এর ফ্যাক্টরী থেকে রওয়ানা দেয় আল আমিন। সঙ্গে ছিলেন ট্রাকের হেলপার হাসান। হাসানের বাড়ি পটুয়াখালী হওয়ায় এই রুট তার চেনা ছিল। আল আমিন প্রথম এই রুটে ট্রাক নিয়ে আসেন। আমার এতিম ভাগ্নেকে নির্মমভাবে খুন করা হলো। আমি খুনিদের উপযুক্ত বিচার চাই।

ছিনতাইকৃত রড ক্রয়ের ব্যাপারে একতা এন্টারপ্রাইজের মালিক মাসুদ রানা সাংবাদিকদের বলেন, আমি মজিবর নামের এক ঠিকাদারের কাছ থেকে রডগুলো ক্রয় করেছি। তিনি (মজিবর) আমার পূর্ব পরিচিত। রডগুলো ছিনতাইকৃত কিনা তা আমার জানা ছিল না। আল আমিন হত্যাকান্ডের বিষয় আমি কিছুই জানি না। কারন ওই রডগুলো যখন আমার ম্যানেজারেরা ক্রয় করে ছিল তখন আমি ঢাকাতে ছিলাম।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে পুলিশের এক কর্মকর্তা বলেন, আল আমিনকে পরিকল্পিতভাবে খুনের পর রড ছিনতাই করা হয়েছে। আর ছিনতাইকৃত রড পাওয়া গেছে একতা এন্টারপ্রাইজে। সুতরাং একতা এন্টারপ্রাইজের মালিক মাসুদ রানা কোনো ভাবেই দায় এড়াতে পারেন না।

বাউফল থানার ওসি শোনিত কুমার গায়েন বলেন, বিষয়টি দশমিনা থানার। রড উদ্ধারের সময় আমরা সহযোগীতা করেছি মাত্র। এর বাইরে আর কিছুই বলতে পারছি না।

এপ্রসঙ্গে পটুয়াখালীর পুলিশ সুপার মোঃ সাইদুল ইসলাম বলেন, মামলার তদন্ত এখন পর্যন্ত শেষ হয়নি। তদন্তে যারা অপরাধী প্রমানিত হবে তাদের প্রত্যেককেই আইনের আওতায় আনা হবে।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
© All rights reserved
প্রযুক্তি সহায়তায়: বাংলাদেশ হোস্টিং