1. info@www.dailybdcrimetimes.com : দৈনিক বিডি ক্রাইম টাইমস.কম :
শনিবার, ২২ জুন ২০২৪, ০৬:৫০ অপরাহ্ন
Title :
এবার কানাডায় খোঁজ মিলল রাজস্ব কর্মকর্তা ড. মতিউর রহমানের কন্যা ইপসিতার আলিশান বাড়ির শূন্য থেকে কোটি কোটি টাকার বিত্তবৈভবের মালিক হওয়া বরগুনার এক সাবেক ইউপি সদস্যের আয়ের উৎস তদন্তের দাবীতে সংবাদ সম্মেলন কটিয়াদী বাজারে আগুনে পুড়ে ছাই দুটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান পাইকগাছায় থানা পুলিশের বিশেষ অভিযানে ৭ আসামি গ্রেফতার পাইকগাছার হরিদাসকাটি আদর্শ লাইব্রেরির ঈদ পূনর্মিলনী পরিচিতি সভা,ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্পের শুভ উদ্বোধন  যুবদল নেতাকে যুবলীগের সভাপতি ঘোষণা, কমিটি বাতিলের দাবিতে বিক্ষোভ বাউফলে চুরি হওয়া স্বর্নলংকার ও নগদ অর্থ সহ দুই চোর আটক কাঞ্চন পৌরসভা নির্বাচন রূপগঞ্জে মেয়র প্রার্থীর উপর হামলার ঘটনায় কাউন্সিলরকে শোকজ বড়াইল হোসাইনিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের ১৯৯৭” ব্যাচ বন্ধুত্বের ঈদ পূর্ণমিলন অনুষ্ঠান বন্ধুকে ঈদের দাওয়াত দিয়ে গোপন অঙ্গ কেটে দেয়,পরে নিজের গোপন অঙ্গ নিজে কেটে ফেলার অভিযোগ উঠেছে

বরগুনায় পুলিশ সুপার কর্তৃক চাঞ্চল্যকর অপরাধের ঘটনাস্থল পরিদর্শন

Reporter Name
  • Update Time : শনিবার, ৫ আগস্ট, ২০২৩
  • ১৮৫ Time View

বরগুনা প্রতিনিধি:

অদ্য ০৪/০৮/২০২৩ ইং বরগুনা জেলার সদর থানাধীন ফুলঝুড়ি ইউনিয়নের পূর্ব গুদিঘাটা সাকিনে মৃত খলিল হাওলাদারের বসতঘরে রাত্র ০০ঃ২০ হইতে ০৪ঃ০০ ঘটিকার মধ্যে আসামি মোঃ ইলিয়াস পাহলান (৩২) ধারালো বাংলা দা দিয়ে কুপিয়ে হাফিজুর (১০) নামের এক শিশুকে হত্যা এবং রিগান (২৮) ও তার শিশুকণ্যা তাইফা (৩) দের গুরুতর জখম করে।
সংবাদ প্রাপ্তির পরপরই পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে ভিকটিম রিগান ও তার শিশু সন্তান তাইফা কে উদ্ধার করে বরগুনা সদর হাসপাতালে ভর্তি করে এবং সেখান থেকে উন্নত চিকিৎসার জন্য বরিশাল শেরে ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পথে শিশু ভিকটিম তাইফাও মারা যায়।

অতঃপর সকাল ০৯ঃ৩০ ঘটিকায় বরগুনা জেলার পুলিশ সুপার জনাব মোঃ আবদুস ছালাম মহোদয় উক্ত ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। ঘটনার প্রাথমিক তদন্তে জানা যায় যে, ভিকটিম রিগান কে তার ভগ্নিপতি ইলিয়াস দীর্ঘদিন যাবত কুপ্রস্তাব দিয়ে আসছিল। গতরাতে আসামী ইলিয়াস অবৈধ শারিরীক সম্পর্ক করার উদ্দেশ্যে ভিকটিম রিগানের নিজ বাবার বাড়িতে প্রবেশ করে। এমতাবস্থায় ভিকটিম বাধা দিলে ভিকটিমের ঘরে থাকা দা দিয়ে আসামী ইলিয়াস হত্যার উদ্দেশ্যে এলোপাতাড়ি ও উপুর্যুপরি কুপিয়ে শিশু হাফিজুর কে ঘটনাস্থলেই হত্যা করে এবং রিগান ও তার শিশুকণ্যা তাইফাকে গুরুতর আহত করে। পরবর্তীতে ভিকটিম তাইফাও মারা যায়।
পরিদর্শনকালে পুলিশ সুপার মহোদয় ভিকটিমের পরিবারবর্গ, স্থানীয় নিরপেক্ষ লোকজন এবং জনপ্রতিনিধিদের সাথে কথা বলেন। এ সময় অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) জনাব মোঃ আব্দুল হালিম, সংশ্লিষ্ট থানার অফিসার ইনচার্জ সহ পুলিশের বিভিন্ন পর্যায়ের অফিসার ও ফোর্স উপস্থিত ছিলেন।

পুলিশ সুপার মহোদয় মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা সহ সংশ্লিষ্ট সবাইকে ঘটনার বিষয়ে গুরুত্বপূর্ণ দিক-নির্দেশনায় প্রদান করেন এবং ঘটনার সার্বিক রহস্য উদঘাটনে শতভাগ পেশাদারিত্বের সাথে কাজ করার নির্দেশনা দেন।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
© All rights reserved
প্রযুক্তি সহায়তায়: বাংলাদেশ হোস্টিং